উন্নয়ন অব্যাহত রেখে আধুনিক পৌরসভা গড়তে চাই - রাবেল

উন্নয়ন অব্যাহত রেখে আধুনিক পৌরসভা গড়তে চাই - রাবেল

সাকিব আল মামুন::
“আগামী ৩০জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন। নির্বাচনে মেয়র পদে ৪জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। তাদের নির্বাচনী ভাবনা পাঠকের কাছে তুলে ধরতে ৪প্রার্থীর মুখোমুখি হয় “সিলেট প্রতিদিন”। আলাপচারিতায় প্রতিবেদকের কাছে মেয়র প্রার্থীরা তুলে ধরেন নির্বাচনী চিন্তা-চেতনা। ১ম পর্বে থাকছে পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেলের প্রতিক্রিয়া”। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে জগ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন তিনি।

(১)

গোলাপগঞ্জ পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম রাবেল বলেছেন, আমি ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সক্রিয় ছিলাম। বর্তমানে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছি। ২০১৮ সালের উপ-নির্বাচনে মানুষের ভালবাসায় মেয়র পদে জয় লাভ করি। আমার দায়িত্বকালীন সময় পৌরবাসীর উন্নয়ন করেছি। করোনাকালীন সময়সহ যেকোন দূর্যোগে পাশে দাঁড়িয়েছি সাধারণ মানুষের। বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার মাধ্যমে পৌরসভার দুয়ার তাদের জন্য খোলা ছিল সব সময়। নির্বাচনে জনগনের ভালবাসা নিয়ে তাদের চাওয়া-পাওয়ার মূল্যায়ন করতে মেয়র পদে আবারো প্রতিদ্বন্ধিতা করছি। সিলেট প্রতিদিনের সাথে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিজয়ে শতভাগ আশাবাদি উল্লেখ করে তিনি বলেন, উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে একটি আধুনিক পৌরসভা গড়তে চাই। এছাড়াও তিনি গোলাপগঞ্জ পৌরসভাকে মাদকমুক্ত পৌরসভা গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন দায়িত্ব গ্রহণের পর গোলাপগঞ্জ পৌরসভাকে মাদকমুক্ত করতে ঘোষনা দেই। পরে তাঁর সহযোগিতা গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ পৌর এলাকা থেকে ১৯জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। পৌর এলাকাকে মাদকমুক্ত করতে সে লক্ষ্যেই এগিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু মহামারী করোনা ভাইরাস আমাদের এ কার্যক্রমকে থমকে দেয়। তবে গোলাপগঞ্জ পৌরসভাকে মাদকমুক্ত করতে থানা পুলিশের সহযোগিতায় কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

তিনি আরো বলেন ইতিমধ্যে পৌর এলাকায় স্বচ্ছ পানির ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট স্থাপনের জন্য উর্ধ্বতন দপ্তরে যোগাযোগ করি। পৌরবাসীর জন্য মিনারেল ওয়াটার নিশ্চিত করতে ২৫কোটি টাকা বরাদ্ধ করা হয়েছে। যার কাজ শিগগির শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল বলেন পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে ষ্ট্রিট লাইট স্থাপন করা হয়েছে। অবশিষ্ট এলাকায় সৌর প্যানেল ষ্ট্রিট লাইট স্থাপন করতে ইতিমধ্যে ৩কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবতন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন। তিনি বলেন পৌরসভাকে আলোকিত করতে কয়েকবার মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে যোগাযোগ করি। পরে তিনি ৩কোটি টাকা বরাদ্দ দেন। নির্বাচন পরবর্তী সময় শুরু হবে।

সাবেক এ ছাত্রনেতা বলেন আমি দীর্ঘদিন প্রবাসে ছিলাম। সেখানেও আওয়ামী রাজনীতির সাথে সক্রিয় ছিলাম। প্রবাসে থেকেও নাড়ীর টানে এলাকার মানুষের জন্য কাজ করেছি। পৌরবাসীর সেবা করতে সুদূুর প্রবাস ছেড়ে দেশে অবস্থান করছি। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন সিটিতে ঘুরেছি। সেখানে অবস্থানকালীন সময় গোলাপগঞ্জকে এসব সিটির মত করে বুকে ধারণ করেছি। আধুনিক বিশ্বের বিভিন্ন সিটির মত করে গোলাপগঞ্জকে লালন করি। তিনি পুনরায় নির্বাচিত হয়ে যাতায়াত, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, মাদকমুক্ত পৌরসভা, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ, সচ্ছ পানির ব্যবস্থাসহ উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়নের মাধ্যমে আধুনিক বিশ্বের মত একটি আধুনিক পৌরসভা বাস্তবায়ন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন। 

এসএএম