পুলিশ-রাজনীতিবিদে উদ্ধার সিলেটের প্রতিবন্ধী লায়েক

পুলিশ-রাজনীতিবিদে উদ্ধার সিলেটের প্রতিবন্ধী লায়েক

এনামুল কবীর :: দীর্ঘ এক বছর মা’র বুকে হাহাকার, বোনের হৃদয় মরুভূমি। ভাইয়েরা হন্য হয়ে তাকে খুঁজেছেন এখানে ওখানে। হদিস মিলেনি কোথাও। তবে শেষ পর্যন্ত তাকে ফিরে পেয়েছেন তারা। তপ্ত হৃদয় শীতল হয়েছে সন্তানহারা জননীর বুক। আর এর নেপথ্যে আছেন প্রবাসী এক রাজনৈতিক নেতার মূল্যবান অবদান।

পাদপ্রদীপের আলোর বাইরেই থাকেন তিনি। এক্ষেত্রেও বাইরে থেকেই কাজ করেছেন। তবে বিষয়টি প্রকাশ করে দিলেন সিলেটের ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি ) শ্যামল বণিক। 

জানিয়ে দিলেন, মানসিক ভারসাম্যহীন লায়েককে তার মা আর পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে মূল্যবান অবদান রেখেছেন সুদুর যুক্তরাজ্যে থাকা আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। 

ওসমানীনগর থানার বুরুঙ্গা ইউনিয়নের পূর্ব তিলাপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন লায়েক আহমদ এক বছর আগে নিখোঁজ হয়েছিলেন। হন্য হয়ে বিভিন্ন স্থানে খোঁজখবর করলেও তাকে পাওয়া যাচ্ছিলনা।

তবে সম্প্রতি তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের সুবাদে জানতে পারেন লায়েক বর্তমানে সাতক্ষিরা সদর থানার লাভসা গ্রামের এক বাড়িতে আছে। এটি জানতে পেরে তারা ছুটে যান পুলিশী সহযোগীতায়। একটা সাধারণ ডায়রিও করেন ওসমানীনগর থানায়। এরপর শুরু হয় ওসি শ্যামল বনিকের তৎপরতা। তাকে পাওয়া গেছে এবং সিলেট নিয়ে আসার সার্বিক তৎপরতা নিয়ে আবারও ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দেন। 

এই স্ট্যাটাসটি আরো অনেকের মতো নজরে পড়ে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর। তিনি ওসি শ্যামল বণিকের সাথে যোগাযোগ করে জানান, ছেলেটি তার পরিচিত। তাকে উদ্ধার ও সিলেটে নিয়ে আসার ব্যাপারে তিনি পর্যাপ্ত আর্থিক সহায়তা পাঠান।

এরপর দ্রুত পুলিশের এসআই মলাই মিয়া একদল সদস্য নিয়ে সাতক্ষিরা সদর থানার লাভসা গ্রামে যান। এই গ্রামের মৃত শেখ মতিউর রহমানের ছেলে শেখ আনোয়ারুল ইসলাম আনুর কাছ থেকে লায়েক আহমদকে উদ্ধারে করেন। আনু জানান, গত ডিসেম্বর থেকেই লায়েক তার আশ্রয়ে আছেন। তবে মানসিক ভারসাম্যহীন হওয়া তার বাড়ির ঠিকানা উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

এরপর তাকে সিলেটে নিয়ে আসা হয়। তুলে দেয়া হয় তার মা সুনরি বেগমের হাতে। এসময় গোটা এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। আবেগাপ্লুত হয়ে মাসহ পরিবারের সদস্যরা কান্নাকাটি শুরু করেন। আনন্দের বন্যায় ভাসতে থাকেন গোটা এলাকাবাসী।

এরপর ওসি শ্যামল বণিকের সুবাদে জানা যায়, প্রবাসী রাজনীতিবিদ আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর অবদানের কথা। তিনি শুধু লায়েককে উদ্ধারের জন্যই অর্থসহায়তা দেন নি, সাথে পবিত্র রমজান মাসে তার পরিবারের জন্য বেশ ভালো অংকের অর্থসহায়তা পাঠিয়েছেন।

বিষয়টি জানতে পেরে লায়েকের মা সুনরি বেগম, তার ভাইসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজন আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সচেতন গ্রামবাসীও তার দীর্ঘায়ু কামনা করে আগামীতেও এমন তৎপরতা অব্যাহত রাখার প্রত্যাশা ব্যক্ত জানান, তিনি ভালো কাজের সাথে সবসময়ই জড়িত। এলাকার লোকজনের বিপদে তিনি নির্ভরতার প্রতিক হয়ে পাশে থাকেন। তার মহানুভবতার জন্য আমারা সবাই তাকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

সিলেট প্রতিদিন/ইকে