খেলবেই বাংলাদেশ: ঘরে বসে মাঠের অনুশীলন

খেলবেই বাংলাদেশ: ঘরে বসে মাঠের অনুশীলন

ক্রীড়া ডেস্ক ;  ক্রিকেট কিংবা ফুটবল, যে কোনো খেলাই হোক না কেনো; দেশের জার্সি গায়ে যখন লাল সবুজের প্রতিনিধিরা মাঠে নামেন তখন বাংলার বাঙালিরা ধর্ম-বর্ণ জাত-পাত ভেদাভেদ ভুলে সব এক হয়ে যান। গলির দোকান থেকে করপোরেট অফিস সবখানেই সবার নজর থাকে খেলার প্রতি। সাকিব, জামাল কিংবা রোমান সানাদের খেলা দেখতে দেখতে স্বপ্ন উঁকি দেয় তাদের মতো হওয়ার।

কীভাবে হওয়া যাবে সাকিব আল হাসানের মতো, কীভাবে জামাল; এই প্রশ্ন সামনে এলেই মনে হয় তাদের মতো কী হওয়া যাবে না! অভিভাবকরাও তাদের ছেলে-মেয়েকে কোথায় দেবেন এটা নিয়ে ভোগেন নানা সমস্যায়। পান না সঠিক দিক নির্দেশনা। এ সব স্বপ্নবাজ অভিভাবক-শিক্ষার্থীদের জন্যই সর্বদা প্রস্তুত ‘খেলবেই বাংলাদেশ।’


খেলবেই বাংলাদেশ কী

‘তোমার স্বপ্ন ছোঁয়ার প্ল্যাটফর্ম’ স্লোগানকে সামনে রেখে কাজ করছে খেলবেই বাংলাদেশ। সবার জন্য খেলার সুযোগ তৈরির দেশের সবচেয়ে বড় উদ্যোগ, এক প্ল্যাটফর্মে খেলাধুলার সব সমাধান।

সংস্থাটির ওয়েবসাইট বলছে, ‘সবাই পেশাদার খেলোয়াড় হবেন কিংবা শীর্ষ পর্যায়ে খেলবেন এমন কোন কথা নেই। কিন্তু, নিজের প্রিয় খেলার ইভেন্টের চর্চা চালিয়ে যেতে দোষ কোথায়? বয়স, পেশা, শ্রেণি, জাতি, ধর্ম কোন কিছুই যেখানে বাধা হতে পারবে না। নিজেকে ফিট রাখতে সব বয়সী মানুষের এমন প্রচেষ্টাকে আমরা উৎসাহিত করি। কিন্তু, হাতের কাছে খেলাধুলার এমন সুযোগ কোথায়? হয়তো বাসা/বাড়ির খুব কাছেই এমন সুযোগ ছড়িয়ে আছে? আমরা অনেকেই সেটা জানি না। এমন সব ভাবনার উত্তর মেলাতে ২০১৫ সাল থেকে কাজ করছে দেশের প্রথম পেশাদার স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি, ইমেগো স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।’ ইমেগোর উদ্যোগেই এলো খেলবেই বাংলাদেশ।


কেনো আসছে খেলবেই বাংলাদেশ

কোথায় কোচিং করলে ভালো হবে, কোথায় খেললে ভালো হবে আপনার অবস্থান আপনার চাহিদা অনুযায়ী সেরাটাই বাতলে দেবে খেলবেই বাংলাদেশ। সেটা দেশের যে কোনো প্রান্তেই হোক না কেনো। সবচেয়ে বড় বিষয় ভিডিও টিউটোরিয়াল-অনলাইন ক্লাস। দেশের নামী-দামি কোচরা, প্রতিষ্ঠিত খেলোয়াড়রা ভিডিও টিপস দেবেন, নিদৃষ্ট বিষয় নিয়ে ধাপে ধাপে অনলাইন ক্লাস নেবেন।

একজন খুদে ক্রিকেটারের বাসা রাঙামাটি হলে তার জন্য ঢাকায় এসে নামী-দামী কোচদের অধীনে কোচিং করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। কিন্তু খেলবেই বাংলাদেশ দিচ্ছে সেই সুযোগ। ঘরে বসেই শহারিয়ার নাফিসের মতো সাবেক ক্রিকেটারদের থেকে শিখতে পারবে ক্রিকেটের ইতিউতি। 


 
খেলবেই বাংলাদেশের সহ-প্রতিষ্ঠাতা কাজী সাবির বলেন, ‘বাংলাদেশে খেলধুলা বিষয়ক নিদৃষ্ট কোনো প্ল্যাটফর্ম নেই, যেখানে সব খেলার তথ্য পাওয়া যাবে। খেলবেই বাংলাদেশে সব তথ্য এক প্ল্যাটফর্মে।’

এটি আরও স্পষ্ট করার জন্য একটি উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, ‘যে জিনিসটা আমার মাথায় আসছে সেটা হচ্ছে, আমি নিজে কোন এলাকায় থাকি। আমার ছেলেকে স্কেটিং শিখাবো, আমি গুগল করলাম, পেলাম হচ্ছে জাহাঙ্গীরনগরে স্কেটিং ক্লাব। আমার বাসা থেকে দূরে। কিন্তু বাসার পাশে গুলশান ইয়ুথ ক্লাবে যে শেখায় সেটা নেই । এখানে আপনাকে সঠিক নির্দেশনায় দেওয়া হবে।’

ভিডিও টিউটোরিয়াল নিয়ে সাবির বলেন, ‘আমার এখানে দুইশর মতো খেলার ভিডিও আছে। শুটিং থেকে শুরু করে, ফুটবল, ক্রিকেট, বক্সিং ভার উত্তোলন সব খেলা নিয়েই।’


 
কোচিংয়ে কারা?

খেলবেই বাংলাদেশে কোচ হিসেবে আছেন সাইফুল বারী টিটু (ফুটবল), নুরুজ্জামান নয়ন (গোলকিপিং কোচ), শাহরিয়ার নাফিস (ক্রিকেট), তালহা জোবায়ের (ক্রিকেট), এনায়েত উল্লাহ খান (ব্যাডমিন্টন) ও এনামুল হোসেন রাজিব (দাবা)। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন ক্রীড়ার প্রতিষ্ঠিত ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরা নিয়মিত যুক্ত থাকবেন, ভিডিও দেবেন বিভিন্ন টিপস দিয়ে।

ফ্রি কোর্স-পেইড কোর্স

খেলবেই বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ৬ হাজারের বেশি ফ্রি রেজিস্টার্ড শিক্ষার্থী আছেন। তাদের জন্য কিছু উন্মুক্ত ভিডিও টিউটোরিয়াল দেওয়া আছে। আর পেইড কোর্সের মাধ্যমে দেওয়া হয় অনলাইন ট্রেনিং। পেইড কোর্সে শিক্ষার্থী সংখ্যা কম হলেও বাড়ছে ধীরে-ধীরে। পেইড কোর্সে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করার এই বিষয়ে তারা আবার অ্যাসাইনমেন্ট সাবমিট করতে পারবে। তাদের অ্যাসাইনমেন্ট দেখে যে কোচ ক্লাস নেবেন তিনি আবার ভুল ত্রুটি ধরিয়ে দেবেন। অর্থ্যাৎ ঘরে বসেই মাঠে অনুশীলনের স্বাদ। এভাবে আলাদা আলাদা ভাবে প্রতিটা কোর্সের ক্লাস-অ্যাসাইনমেন্ট থাকবে।

সাবির বলেন, ‘আমার যে ভিডিওগুলো আছে সেগুলো সবার জন্য উন্মুক্ত। পেইড কোর্স আর ফ্রি কোর্সের পার্থক্য হলো আমরা তো চাইলে ইউটিউবে দেখতে পারতেছি। প্রথম কথা আপনি দেখবেন ইউটিউবে বাংলায় ভালো ম্যাটেরিয়াল নাই। আমরাটা তো পুরোপুরি বাংলা। দ্বিতীয়ত ওখানে তো আপনি কোচের সঙ্গে কথাও বলতে পারতেন না নিজের খেলাও দেখাতে পারতেন না। এখানে থাকছে কোচের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ, নিজের খেলা দেখানোর সুযোগ।’

কীভাবে রেজিস্ট্রেশন

https://www.khelbeibangladesh.com/  এ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে যেতে হবে অনলাইন কোর্সে। এখানে ক্লিক করলেই পাওয়া যাবে শাহরিয়ার নাফিস-সাইফুল বারীদের কোচিংয়ের নানা কোর্স। এবার পছন্দের কোর্সটিতে ক্লিক করে যথাযথ প্রক্রিয়া মেনে করে নিতে হবে রেজিস্ট্রেশন। এখনকার কোর্সগুলো ফি রাখা হয়েছে মাত্র ৯৯ টাকা। ফেসবুক অথবা ইমেইলের মাধ্যমে ওয়েবসাইটে লগইন করা যাবে।

সিলেট প্রতিদিন /টিআই