ত্যাগের ফসল নিয়ে টানাটানি!

ত্যাগের ফসল নিয়ে টানাটানি!

সাকিব আল মামুন :: দলের প্রতি নিজের আনুগত্য, ত্যাগ, নৈতিকতা ও যোগ্যতার মূল্যায়নের মাধ্যমে নব গঠিত গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদে জায়গা করে নিয়েছেন আব্দুল মন্নান কয়েছ। তিনি সদ্য অনুমোদিত এ কমিটিতে শ্রম বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।
 
এর পরই কমিটিতে তাঁর স্থান প্রাপ্তি নিয়ে অপপ্রচার করছে একটি মহল। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেইসবুক) তাঁর বিরুদ্ধে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে মানহানির চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।
 
তবে এ বিষয়ে প্রশ্ন জাগছে সচেতন রাজনৈতিক মহলে। তাদের দাবি ব্যক্তিগত প্রতিহিংসাকে ইস্যু করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করতে নোংরা খেলায় লিপ্ত রয়েছে একটি পক্ষ। উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ আতহারিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ এর (২০২০-২০২১ সালের) এডহক কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে একটি মহল তাদের নিজস্ব ফায়দা হাসিল করার উদ্দেশ্যে তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। আলাপকালে এমনটাই জানালেন আব্দুল মন্নান কয়েছ।
 
জানা যায়, তিনি আশির দশক থেকেই আওয়ামী রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন। ১৯৮০-১৯৮২ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মদনমোহন কলেজ শাখার সদস্য ছিলেন তিনি। পরে ২০০৩-২০১৯সাল পর্যন্ত উপজেলার ৩নং ফুলবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এরমধ্যে ২০০৪ সালে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ইকবাল আহমদ চৌধুরী সভাপতির পদে নাম প্রস্তাবকারী ও কাউন্সিলর ছিলেন তিনি।
 
২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপির ৩নং ফুলবাড়ী ইউনিয়নের নির্বাচন কমিটির সদস্য সচিব হিসেবের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও ২০১৪সালে ইউনিয়ন নির্বাচনে ফুলবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী এমএ হানিফ খানের প্রধান নির্বাচনী এজেন্টের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।
 
সচেতন রাজনীতিবিদরা বলছেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ শ্রম বিষয়ক সম্পাদক পদটি তাঁর রাজনৈতিক মেধা, বিচক্ষণতা ও ত্যাগের ফসল। আপাদমস্তক একজন সমাজ হিতৈষী ব্যক্তির সাথে ব্যক্তিগত প্রতিহিংসাকে রাজনৈতিক ইস্যুতে স্থানান্তর তাঁর রাজনৈতিক চরিত্র স্খলনের অপচেষ্টা করা হচ্ছে বলে তারা জানান।
 
এব্যাপারে আব্দুল মন্নান কয়েছ অপপ্রচারের নিন্দা জানিয়ে বলেন, আমি ছাত্রলীগের রাজনীতি থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত দলের ত্যাগ শিকার করে এ পর্যন্ত এসেছি। ব্যক্তিগত ইস্যুকে রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত করে আমার মানহানি চরিতার্থ করা হচ্ছে। এ যেন ত্যাগের ফসল নিয়ে টানাটানি শুরু হয়েছে!
 
সিলেটপ্রতিদিন/এসএএম