প্রলোভনে জান্নাতকে বিভিন্ন হোটেল ও রিসোর্টে নিয়ে যেতেন মামুনুল

প্রলোভনে জান্নাতকে বিভিন্ন হোটেল ও রিসোর্টে নিয়ে যেতেন মামুনুল

প্রতিদিন ডেস্ক :: বিয়ের প্রলোভনে জান্নাত আরাকে নিয়ে বিভিন্ন হোটেল ও রিসোর্টে নিয়ে যেতেন হেফাজত নেতা মামুনুল হক। এমন অভিযোগ করেছেন মামুনুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করা ওই নারী। তবে জান্নাত মামুনুল তাকে বিয়ে করেছেন বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

কদিন আগে নারায়ণগঞ্জের রয়্যাল রিসোর্টে মামুনুলের সঙ্গে আটক হওয়া এই নারী অভিযোগ করেন করেন, বিয়ের প্রলোভন ও অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে মামুনুল হক তার সঙ্গে সম্পর্ক করেছেন। কিন্তু বিয়ের কথা বললে মামুনুল করছি, করব বলে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। ২০১৮ সাল থেকে ঘোরাঘুরির কথা বলে মামুনুল বিভিন্ন হোটেল, রিসোর্টে তাকে নিয়ে যান।

প্রলোভন, প্রতারণা,  নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে মামলায় এসব অভিযোগ করেছেন জান্নাত আরা ঝর্ণা। 

শুক্রবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় মামলাটি করেন তিনি। মামলার নম্বর ৩০। 

মামুনুল হক দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করলেও মামলায় জান্নাত নিজেকে মামুনুল হকের স্ত্রী বলেননি। 

জান্নাত আরা ঝর্ণার বাবা ওলিয়ার রহমানকে গত ২৪ এপ্রিল জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নেয় ঢাকার গোয়েন্দা পুলিশ।  আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর থেকে তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। এরপর ২৬ এপ্রিল মেয়েকে উদ্ধারে পুলিশের সহায়তায় চেয়ে কলাবাগান থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন তিনি। পরদিন মোহাম্মদপুরের একটি বাসা থেকে ঝর্নাকে উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ। ঝর্না উদ্ধার হওয়ার তিন দিনের মাথায় এই মামলা করলেন।

প্রসঙ্গত, কদিন আগে সোনারগায়ে রয়্যাল রিসোর্টে ঝর্নাসহ ধরা পড়েন মামুনুল হক। মামুনুল তাকে স্ত্রী বলে দাবি করেন। তবে ঝর্নার পরিবার দাবি করেন, মামুনুল তাকে বিয়ে করেননি। বিয়ের প্রলোভনে ব্যবহার করেছেন।

সিলেট প্রতিদিন/এমএ