বিয়ানীবাজারে নাম মাত্র লকডাউন, উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি

বিয়ানীবাজারে নাম মাত্র লকডাউন, উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি :: সারাদেশের ন্যায় বিয়ানীবাজারে চলছে সরকার ঘোষিত লকডাউন। তবে যত সময় ঘনিয়ে আসছে লকডাউন শুধুই নাম মাত্র চলছে বিশেষ করে পৌর শহর সহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে মাস্ক পরিধানে উদাসীন সাধারণ মানুষ। সেই সাথে স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে হরহামেশাই প্রয়োজন ছাড়া বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন কয়েকশো মানুষ।
 
শতকরা ৬০ শতাংশ মানুষের মুখে মাস্ক না থাকায় বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি। একদিকে উপজেলায় করোনার রোগী ৫০০ ছুই ছুই অবস্থা অপর দিকে সাধারণ মানুষের উদাসীনতা কপালে চিন্তার বাঁজ ফেলেছে প্রশাসনের উপর। গত দুই দিনে বিয়ানীবাজারে ২৬ টি প্রতিষ্ঠান সহ একাধিক ব্যাক্তিকে জরিমানা করেছে প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশিক নূরের নেতৃত্বে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছেন সহকারি কমিশনার (ভূমি) মুশফিকুন নূর। প্রশাসনের কঠোর নজরদারিতে ও যেন এ উপজেলায় উপেক্ষিত স্বাস্থ্য বিধি। 
 
সরেজমিনে দেখা যায়, পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ যে সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান গুলোতে মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্য বিধি সেই সাথে নির্ধারিত সময়ে দোকানপাট বন্ধে উদাসীন। 
 
বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মেহেদি হাসান বলেন, আমরা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে নিদিষ্ট সময়ে যাতে সবাই দোকানপাট বন্ধ করে দেয় সে বিষয়ে তৎপর রয়েছি। এ ছাড়াও প্রয়োজন ছাড়া কাউকে বাইরে দেখলে নিষেধ করছি।

বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশিক নুর বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত মাঠে রয়েছি। যতটুকু সম্ভব সবাইকে মাস্ক ব্যাবহার করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেই লক্ষ্যে কাজ করছি। এ ছাড়াও ভ্রাম্যমাণ আদালতে এই দুই দিনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যাক্তিকে জরিমানা করা হয়েছে। 

এসএএম