যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি : সিলেটের চার নেতাকে নিয়ে জল্পনা কল্পনা

যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি : সিলেটের চার নেতাকে নিয়ে জল্পনা কল্পনা

প্রতিদিন প্রতিবেদক: শীঘ্রই আসছে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ এর অঙ্গ সংগঠন আওয়ামী যুবলীগ এর কেন্দ্রীয় কমিটি। কেন্দ্রীয় কমিটিতে সিলেট অঞ্চল থেকে কে কে স্থান পাচ্ছেন তা নিয়ে এখন নেতাকর্মীদের মাঝে চলছে চুলচেড়া বিশ্লেষন। তবে সিলেট জেলা ও মহানগর থেকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে তেমন কেউ জায়গা পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে জানা গেছে।

দলটির নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, সিলেট অঞ্চলে সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ থেকে চার জন নেতা যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তারা হলেন, সুনামগঞ্জের খায়রুল হুদা চপল, হবিগঞ্জের ব্যারিষ্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন, আব্দুল মুকিত ও সাহেদ গাজী ।

দলটির সূত্র জানায়, যুবলীগের বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হবেন একজন, আরেকজন হতে পারেন প্রেসিডিয়াম সদস্য। বাকিরা পেতে পারেন যে কোন সম্পাদকীয় পদ। তবে কে কোন পদ পাচ্ছেন তা নিয়ে দলটির অভ্যন্তরে নেতাকর্মীদের মাঝে চলছে বিশ্লেষন। কেউ কেউ বলছেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল হতে পারেন বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আর ব্যারিষ্টার সুমন হতে পারেন প্রেসিডিয়াম সদস্য। তবে দলের অপর একটি সূত্রের দাবি এর ব্যাতিক্রমও হতে পারে।

দলটির তৃনমূলের নেতাকর্মীদের মতে, স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন নেতারাই নেতৃত্বে আসুন। যাতে করে দল ও সরকারের ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন থাকে। কোন ব্যক্তির কারনে দলের গায়ে কালেমা লেপন হয় এমন নেতৃত্ব না আসাই দলের জন্য ভাল।

জানা যায়, ২০১৯ সালের ২৯ জুলাই দীর্ঘ ১৬ বছর পর সিলেট জেলা ও মহানগর যুবলীগের সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। এরপরেই যুবলীগের অভ্যন্তরে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করা হয়। গ্রেফতার করা হয় বেশ কযেকজন কেন্দ্রীয় নেতাকে। পরে যুবলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । সম্মেলনে কেন্দ্রিয় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন মঈনুল হোসেন খান নিখিল।

তবে করোনাকালের কারনে দলটির কেন্দ্রীয় পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা যায়নি। সম্প্রতি আওয়ামীলীগের বেশ কয়েকটি অঙ্গ সঙ্গঠনের কমিটি ঘোষনা করা হলেও ঘোষনা করা হয়নি যুবলীগের কমিটি। তবে খুব শীঘ্রই যুবলীগের কমিটি অনুমোদন পাবে বলে জানা গেছে।

জানতে চাইলে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, আমি এখন পর্যন্ত বিষয়টি সম্পর্কে কিছুই জানিনা । যদি সেরকম কিছু হয় তখন আমি আমার আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাবো।

সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহবায়ক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, পদ পাওয়া না পাওয়া এগুলো আমাদের নেত্রী আর যুবলীগের চেয়ারম্যানের বিষয়। তারা যদি মনে করেন আমাকে দায়িত্ব দিলে আমি সংগঠনের জন্য ভাল হবে তাহলে আমাকে দায়িত্ব দিবেন। দায়িত্ব পেলে আমি নিজেকে সংগঠনের জন্য উজাড় করে দিব। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সিলেট অঞ্চলে যুবলীগ অত্যন্ত সংগঠিত ও শক্তিশালী সংগঠন। দায়িত্ব পেলে সবাইকে নিয়ে আরো গতিশীল ও সৃজনশীল কাজের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কাজ করা হবে ।