সিলেটে ইফতার বিতরণ ও মুরোদহীনদের সমালোচনা

সিলেটে ইফতার বিতরণ ও মুরোদহীনদের সমালোচনা

সাজলু লস্কর :: ইফতার মাহফিল বা ইফতার পার্টিকে হটিয়ে করোনাকালে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ইফতার বিতরণ। উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী দল, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ  সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে এবার সারাদেশে চলছে ইফতার বিতরণ। বিশেষ করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ সিলেটসহ সারাদেশে ইফতার বিতরণ করছেন। বিষয়টিকে অনেকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখলেও কেউ কেউ এর সমালোচনাও করছেন। তবে এতে থেমে নেই এই মানবিক উদ্যোগ।
 
করোনা মহামারির এই সংকটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা অত্যন্ত জরুরী। সেজন্য জাতিসংঘ ও বিশ্বস্বাস্থ্যসংস্থা ঘোষিত বিধিনিষেধ মানতে গিয়ে সিলেটে গেলো বছরের মতো এবছরও ইফতার মাহফিল বা ইফতার পার্টি হচ্ছেনা। সরকারি বেসরকারি- সবধরণের প্রতিষ্ঠানই ইফতার মাহফিল থেকে বিরত রয়েছে। তবে এর বিপরীতে চলছে ইফতার বিতরণ। 
 
আর এক্ষেত্রে সরকারি দল আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনগুলো এগিয়ে। অন্তত সিলেট জেলা ও মহানগরে। প্রায় প্রতিদিনই যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ বা ছাত্রলীগের পক্ষে নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে ইফতার বিতরণ করা হচ্ছে। এতে নিম্ন আয়ের মানুষজন উপকৃত হচ্ছেন- একথা বলার অপেক্ষা রাখেনা। এতে তারা বেশ প্রশংসাও অর্জন করছেন সুধী মহলে।
 
তবে বাংলাদেশে যে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ অপরপক্ষের ভালো কাজেও মন্দটা খুঁজে বের করেন তা এক্ষেত্রেও হচ্ছে। কেউ কউে কঠোর সমালোচনা করছেন। তাদের মতে, এটা হচ্ছে লোক দেখানো ফটোসেশন। 
 
সচেতন মহল মনে করছেন, ফটোসেশনের সুবাদেও যদি দরিদ্র মানুষ সারাদিন রোজা থেকে কিছুটা ভালো ইফতার পায়- মন্দ কি!
 
সমালোচকদের জবাবে তারা অত্যন্ত কঠোর। তাদের মতে, নিজেদের কিছু করার মুরোদ যাদের নেই, ভালো কাজের দোষ তারা খুঁজে বের না করলে আর করবে কে?
 
তবে যারা রাজনীতি বুঝেন না বা রাজনীতির সাতপাঁচে যারা নেই, তারা কিন্তু ইফতার বিতরণের সংস্কৃতিটাকে স্বাগতই জানাচ্ছেন। তাদের মতে, আসলে এটিই হওয়া উচিৎ। ইফতার মাহফিলের নামে যাদের প্রয়োজন নেই, তেমনসব সামর্থ্যবানদের খাওয়ানোর চেয়ে অসহায় দরিদ্র মানুষের হাতে একটু ভালো ইফতার তুলে দিতে পারাটা যেমন অধিক পূণ্যের কাজ, তেমনি তা অধিক কার্যকরও। এতে তাদের কিছু টাকা বেঁচে যায় এবং বেঁচে যাওয়া টাকাটা পরিবারের অন্যান্য কাজে লাগে।
 
আর তাই তাদের মতে, বসে থেকে অযথা সমালোচনা না করে ছাত্রলীগ, যুবলীগ বা আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের মতো সাংগঠনিক ভাবে বা ব্যক্তিগভাবেও সবাইকে এই করোনাকালে ইফতার বিতরণে নেমেপড়া উচিৎ।
 
সিলেট প্রতিদিন/ এসএল