হুজুর কেন রিসোর্টে?

হুজুর কেন রিসোর্টে?

প্রতিদিন প্রতিবেদক :: হুজুর কেন রিসোর্টে? দামি প্রশ্ন। নারায়নগঞ্জ থেকে বাতাসে উড়তে উড়তে প্রশ্নটি এখন ছড়িয়ে পড়েছে ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলজুড়ে।

দেশে আলোচিত-সমালোচিত বক্তা ও হেফাজত নেতা আল্লামা মামানুল হককে আজ শনিবার ( ৩ এপ্রিল) বিকেলে নারায়নগঞ্জের একটি রিসোর্ট থেকে আটক করে স্থানীয় জনতা।

এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সেটিতে দেখা যায়, হেফাজ নেতা মাওলানা মামুনুল হকের পোশাক আশাকও অসংলগ্ন।

জনতার প্রশ্নের মুখে মাওলানা মামুনুল দাবি করেছেন, সঙ্গের মহিলাটি তার দ্বিতীয় স্ত্রী। 

জনতার হাতে আটকের বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশও সেখানে উপস্থিত হয়ে তাতে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। মহিলাটি তার স্ত্রী কি না, প্রশ্ন তা না। সারাদেশে এখন প্রশ্ন এই একটাই হুজুর কেন রিসোর্টে?

তারা অপব্যয় নিয়ে ওয়াজ মাহফিলে গরম করা বক্তব্য রাখেন, কোরআন হাদিসের আলোকে নানা যুক্তি তুলে ধরেন, মানুষকে ইসলাম ও আল্লাহর রাস্তায় আহ্বান করেন, দান খয়রাতে উৎসাহ দেন, জ্বালাময়ী বক্তব্য রাখেন, সেই হুজুরদের মধ্যে দেশে আলোচিত সমালোচিত মাওলানা মামুনুলা হক কেন রিসোর্টে যাবেন? তাও আবার নিজের দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে? তার কি নিজের বাসা নেই?

জানা যায়, ওয়াজ নসিহতসহ আরও নানাভাবে মাওলানা মামুনুল হকের মতো বক্তারা প্রচুর কামাই করেন। তাদের মুখের বক্তব্য শুনে মানুষ ভীড় করেন ইসলাম সম্পর্কে জানতে শুনতে। বিনিময়ে তারা কামাই করেন কাড়ি কাড়ি টাকা। আর সেই টাকায় গোপনে ভোগ বিলাশে মত্ত থাকেন মামুনুল হকরা।

রিসোর্টে যাওয়ার অধিকার তার আছে। থাকার অধিকারও আছে। আছে রাত কাটানোর অধিকারও। এমনকি নিজের স্ত্রী সন্তান নিয়েও তিনি থাকতেই পারেন। 

তবে মামুনুল হকরা যখন কৃচ্ছতা সাধনের উপকারিতা নিয়ে বক্তব্য রাখেন, অপব্যয়কারিকে শয়তানের বন্ধু বলে হাদিসের বিস্তারিত ব্যাখ্যা প্রদান করেন
তখন তার রিসোর্টে থাকা নিয়ে প্রশ্ন উঠে দেশজুড়ে।

তবে সাথের মহিলাটি তার প্রকৃত স্ত্রী কি না, সেটি নিয়ে সৃষ্ট ধু¤্রজাল অবসানের পর হয়ত আরও অনেক প্রশ্নের উদ্ভব হতে পারে, আবার অনেক প্রশ্নের উত্তরও মিলতে পারে।

সিলেট প্রতিদিন/ইকে