কি লেখা ছিল আকলিমার হাতে?

কি লেখা ছিল আকলিমার হাতে?

প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেট নগরীর কোতোয়ালি থানাধিন আখালিয়ার সুরমা আবাসিক এলাকায় আকলিমা আক্তার রিমা (২০) নামের এক তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যার পর এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই তরুণীর লাশ উদ্ধার করে। 

আকলিমার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে- প্রেম সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে।

আকলিমা আক্তার রিমা সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার রানাপিং গ্রামের আব্দুল আহাদ শিবলুর মেয়ে। তারা সুরমা আবাসিক এলাকার অ্যাডভোকেট মো. আজিম উদ্দিনের (রেনেসা-২) বাসার দ্বিতীয় তলায় ভাড়াটে থাকতেন।

সোমবার ইফতারের পর রিমা তার শয়নকক্ষে চলে যান। পরে রাত ৯টার দিকে হঠাৎ সিলিং ফ্যানের সঙ্গে তার লাশ ঝুলতে দেখে পরিবারের সদস্যরা চিৎকার ও কান্না করতে শুরু করেন। পরে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে রাত ১০টার দিকে পুলিশ ওই বাসায় গিয়ে রিমার লাশ উদ্ধার করে।

এদিকে এ ঘটনায় নিহত আকলিমা বেগমের ভাই আব্দুস সামাদ বাদী কোতোয়ালী থানায় একটি অপমৃত্যূর মামলা দায়ের করেছেন।মামলা নং ২৫।

মামলা সূত্রে জানা যায়, কোনো ছেলের সাথে তার প্রেম সম্পর্ক থাকতে পারে। তবে সে বিষয়টি গোপন রাখতো নিহত আকলিমা। বিভিন্ন সময় আকলিমাকে বিয়ের জন্য বলা হলেও সে বিয়ে করতে রাজি হতো না। 

আকলিমার লাশ উদ্ধারের পর তার হাতে বেশ কিছু কাটার দাগ পাওয়া যায় জানিয়ে কোতোয়ালি থানার ওসি তদন্ত মো.ইয়াসিন সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, সে আত্মহত্যা করেছে এবং আত্মহত্যার আগে ভাঙা গ্লাসের টুকরো দিয়ে সে তার হাতে কিছু লেখার চেষ্টা করছিলো। লেখাগুলো ইংরেজি অক্ষরের কিন্তু সেগুলো স্পষ্ট বুঝা যাচ্ছে না। ঝুলন্ত লাশের পাশে একট ভাঙা গ্লাসের টুকরো পাওয়া গেছে। 

এ ব্যাপারে কোতোয়ালী থানার ওসি এসএম আবু ফরহাদ সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে প্রেম সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় তার ভাই আব্দুস সামাদ বাদী থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দাযের করেছেন। 
   
সিলেট প্রতিদিন/এমএ