শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৩:২০ অপরাহ্ন


জেলা আ.লীগের সম্মেলন :সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন নেতৃত্বের প্রত্যাশা তৃণমূলে

জেলা আ.লীগের সম্মেলন :সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন নেতৃত্বের প্রত্যাশা তৃণমূলে

  • 2.4K
    Shares

প্রতিদিন প্রতিবেদক : নেতৃত্বের ছন্দপতন ঘটছে জেলা আওয়ামী লীগে। সম্মেলনকে সামনে রেখে এমন আলোচনা এখন নেতাকর্মীদের মুখে মুখে। চলছে বিগত কার্যক্রমের চুল ছেড়া বিশ্লেষণও। জেলার গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে নতুন নেতৃত্বের প্রত্যাশা তৃণমূল নেতাকর্মীদের। সভাপতি ও সম্পাদক হতে আগ্রহী প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ চলছে। সেই সাথে কর্মীদের সাথে প্রচারনাও চলছে সমান তালে।

জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী। শুরু থেকেই জেলার গুরু দায়িত্ব পালনে তিনি প্রানান্ত প্রচেষ্টা চালিয়ে গেছেন। একাই জেলা কমিটিকে সামাল দিয়েছেন দৃঢ়ভাবে। সরব থেকেছেন দলীয় কর্মসূচি পালনে। তবে, আসন্ন সম্মেলনে জেলা সাধারণ সম্পাদকের পদে তিনি আর থাকছেননা-এমনটি জানিয়েছেন ঘণিষ্টজনেরা। এবার সাধারণ সম্পাদক নয়, সভাপতি পদে শফিকুর রহমান চৌধুরীকে দেখতে চাইছেন নেতাকর্মীরা। নেতাকর্মীদের দাবির প্রতি একাত্বতা পোষণ করে তিনিও সভাপতি পদে কোমর বেধে মাঠে নেমেছেন বলে জানাগেছে। দুর্নীতি, দখলবাজ কিংবা ঘুষ বাণিজ্যের সাথে কোনোদিনই শফিক চৌধুরীর সম্পর্ক ছিলনা। ফলে সভাপতি পদে নিজ অবস্থানটিও শক্তিশালী এই প্রার্থীর।

শফিক চৌধুরী সাধারণ সম্পাদক পদে এবার থাকছেননা-এই বিষয়টি প্রচার হওয়ার পর সাধারণ সম্পাদক পদে দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে অনেক প্রার্থীর। সম্মেলনের দিনক্ষণ যতোই ঘনিয়ে আসছে,প্রার্থী তালিকা ততোই দীর্ঘ হচ্ছে। সিলেট প্রতিদিনের অনুসন্ধানে সাধারণ সম্পাদকের পদে এই পর্যন্ত যাদের নাম উঠে এসেছে তারা হলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এডভোকেট শাহ ফরিদ আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক, এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান,দপ্তর সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রুহেল ও ছাত্রলীগের সাবেক জেলা সভাপতি ও আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী।

সম্লেলন হবে সরাসরি কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ্য ভোটে-এমন বিষয়টি এখনও স্পষ্ট করা না হলেও কাউন্সিলরদের কদর বাড়ছে প্রার্থীদের কাছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ছাড়াও মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সমর্থন আদায়ের প্রচেষ্ঠা চালাচ্ছেন প্রার্থীরা। তবে, সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন দুর্নীতি বিতর্কের বাহিরে থাকা প্রার্থীরা। কোনো বিতর্কিত ব্যক্তিদের দলে ঠাঁই হবেনা-দলীয় হাইকমান্ডের এমন নির্দেশের পর দলীয় কর্মীরাও যোগ্য প্রার্থীদের মূল্যায়নের ব্যাপারে একাট্টা।

বিভিন্ন সূত্র মতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় একটি টিম প্রার্থীদেরকে নজরদারীর ভিতরে রেখেছেন। তাদের জীবন বৃত্তান্ত নিয়ে পর্যালোচনা করবেন। গোয়েন্দা রির্পোট সংগ্রহ করতে পারেন। তবে প্রধানমন্ত্রী, দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার উপর নির্ভর করছে কে হচ্ছেন আগামী দিনের জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদক। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত মাহবুবুল আলম হানিফ ও সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন সিলেট বিভাগে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক ভীত মজবুত করার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আগামী সম্মেলনের মাধ্যমে সিলেটে গ্রুপ রাজনীতির অবসান হচ্ছে। যারা দলের মধ্যে গ্রুপ রাজনীতি করেছেন তাদের কে চিহৃত করা হচ্ছে।
জেলার সাধারণ সম্পাদক পদে শক্তিশালী প্রার্থী এডভোকেট শাহ ফরিদ আহমদ। রয়েছে পরিচ্ছন্ন ইমেজও। মুজিবাদর্শে দীক্ষিত ছাত্রজীবন থেকেই। সাবেক ছাত্রনেতা হিসেবে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হিসেবে পছন্দের তালিকায় অন্যতম তিনি। দৌড়াঝাঁপেও তিনি পিছিয়ে নেই। ইতোমধ্যে দলীয় কর্মীদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে প্রচার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিজাম উদ্দিন। তিনিও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হচ্ছেন-এমন তথ্য নিশ্চিত। এই পদে নিজের কর্মদক্ষতার জানান দিতে তিনিও প্রচারণায় পিছিয়ে নেই। জেলা সাধারণ সম্পাদকের অনুপস্থিতকালীণ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে জেলার দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতাও রয়েছে এই প্রার্থীর।

সাধারণ সম্পাদক পদে বেশ শক্তিশালী অপর প্রার্থী অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক। কট্টর আওয়ামী লীগ নেতা হিসেবে তিনি কর্মীদের কাছে পরিচিত। ত্যাগী হিসেবে দলীয় আনুগত্য দেখিয়েছেন একাধিকবার। একজন স্বজ্জন ও কর্মীবান্ধব নেতা হিসেবে তৃণমূল নেতাকর্মীরা সাধারণ সম্পাদক পদে অধ্যক্ষ সুজাত আলীকে দেখতে চায়-এমন দাবি অনেকের। প্রচারণায় সরব না থাকলেও নেতাকর্মীদের পছন্দের তালিকায় অন্যতম শক্তিশালী প্রার্থী তিনি।

সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ বিরোধী আন্দোলনের সম্মুখ সারীর এই নেতা জেলার গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ সম্পাদক পদে আসীন থাকলে দলের ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল হবে-এমনটিও জানিয়েছেন দলের মহানগর শাখার দায়িত্বশীল এক নেতা।

ছাত্রলীগের রাজনীতিতে মাঠ কাঁপিয়ে যিনি অভিভাবক সংগঠনে যুক্ত হয়েছেন, তিনি এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান। ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। জেলা জোড়ে বিশাল একটি সংগঠন পরিচালনায় অভিজ্ঞতাসমৃদ্ধ এডভোকেট নাসির উদ্দিনকেও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতাপশালী প্রাথী হিসেবে ভাবছেন নেতাকর্মীরা। তিনি সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হচ্ছেন এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। দলীয় কর্মীদের সাথে কথা বলে জানাগেছে, তিনি ইতোমধ্যে প্রস্তুতি গ্রহণ করে নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রুহেল। তিনিও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হচ্ছেন-নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে। জেলার দাপ্তরিক কার্যক্রম চালানোর পাশাপাশি মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের কাছেও তিনি বেশ সুপরিচিত।

দলের উপ-দপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী বলেন, জেলার ছাত্র সংগঠনের গুরুদায়িত্ব পালন করার মধ্য দিয়ে এই পর্যায়ে এসেছি। দল এবং সংগঠনের প্রয়োজনে আগামীতেও থাকবো। কর্মীরা চাইলে এবং দলীয় নেত্রী সুদৃষ্ঠি থাকলে নিশ্চয়ই মূল্যায়িত করবেন।

দপ্তর সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রুহেল নিজের প্রার্থীতা জানিয়ে বলেন, দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। চাওয়া-পাওয়ার হিসেব করিনি কোনোদিন। দলের প্রয়োজনেই সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছি। কর্মীরা চাইলে গোটা জেলার জন্য নিজের যোগ্যতা মেলে ধরার প্রানান্ত প্রচেষ্টা চালাবো।

এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান সিলেট প্রতিদিনকে এ বিষয়ে বলেন, সিলেট বাংলাদেশের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলা শহর। এই জেলার রাজনৈতিক পরিস্থিতির প্রতি সারাদেশেরই দৃষ্ঠি থাকে। ফলে জেলার দায়িত্বশীল নেতাকর্মীদেরও ভুমিকা থাকতে হয় বলিষ্টভাবে। বিগত দিনের অভিজ্ঞতার তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, নেত্রীর সুদৃষ্টি হলে অবশ্যই দায়িত্বপালনে সচেষ্ট থাকবো।

প্রার্থী হওয়া বিষয়ে অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক বলেন, কাজ করলেই মূল্যায়ন হয়। দলের জন্য কাজ এবং কর্মীদের মূল্যায়নের মধ্য দিয়েই পদে আসতে হয়। পদবী ব্যবহার করে বাণিজ্য করা কিংবা নিস্ক্রীয় থাকা দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থি। তিনি বলেন, দলে কতোবছর ধরে আছেন এমন বিষয়ের চাইতে দলের জন্য কি করেছেন-সেই বিষয়টি আমার কাছে গ্রহণযোগ্য বেশি।

সাধারণ সম্পাদক সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হচ্ছেন-নিশ্চিত করে জেলা সহ-সভাপতি এডভোকেট শাহ ফরিদ আহমদ বলেন, রাজনীতির প্রয়োজনে দলে ছিলাম, এখনও দলেই আছি। অর্জন যা হয়েছে এবং হবে তার সবটুকুই দলের জন্য। তিনি বলেন, নেত্রী চাইলে এই গুরুদায়িত্ব পালনে পিছপা হবোনা।

সিলেট প্রতিদিন/এআর


  • 2.4K
    Shares




পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com