শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৫২ অপরাহ্ন


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনই একমাত্র সমাধান

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনই একমাত্র সমাধান


প্রতিদিন ডেস্ক : রোহিঙ্গা সংকটের কারণে বাংলাদেশে অস্থিতিশীলতা তৈরি হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের নিরাপদে এবং মর্যাদার সঙ্গে স্বেচ্ছায় আপনভূমি রাখাইন রাজ্যে প্রত্যাবাসনই এ সংকটের একমাত্র সমাধান।

শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) আজারবাইজানের রাজধানী বাকুতে জোট-নিরপেক্ষ আন্দোলনের (ন্যাম) সম্মেলনের প্লেনারি সেশনে বক্তৃতাকালে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। বাকুর কংগ্রেস সেন্টারে আয়োজিত এ সেশনের শিরোনাম ছিল ‘সমসাময়িক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সমন্বিত ও পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নিশ্চিত করতে বানদুং নীতিমালা অনুসরণ’।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখন ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিচ্ছি। কিন্তু রোহিঙ্গা সংকট বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করে পিছিয়ে দিতে পারে বলে শঙ্কা রয়েছে। সেজন্য আমরা এই সংকটের সমাধানের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহায়তার কথা বারবার বলে আসছি। বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের নিরাপদে এবং মর্যাদার সঙ্গে স্বেচ্ছায় আপনভূমি রাখাইন রাজ্যে প্রত্যাবাসনই এ সংকটের একমাত্র সমাধান।’

মিয়ানমারে সৃষ্ট রোহিঙ্গা সংকটকে রাজনৈতিক সমস্যা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেজন্য এই সমস্যার সমাধানও মিয়ানমারেই খুঁজতে হবে।

আর্থসামাজিক খাতে সাফল্য সত্ত্বেও বাংলাদেশকে এখন রোহিঙ্গা সংকট ও জলবায়ুর পরিবর্তনজনিত বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় কাজ করতে হচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সম্পর্কে বলতে গিয়ে বাংলাদেশ সরকারপ্রধান বলেন, বৈশ্বিক উষ্ণতার জন্য যদিও বাংলাদেশ খুব বেশি দায়ী নয়, কিন্তু এর বিপর্যয়কর প্রভাব মারাত্মকভাবে ভোগাচ্ছে এদেশকে।

শেখ হাসিনা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের, বিশেষ করে উন্নত দেশগুলোকে অবশ্যই এ বিষয়ক জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক পুরোপুরি মেনে চলতে হবে।

হাসিনা-মাহাথির:-মোহাম্মদ বৈঠক

আজারবাইজান সফররত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছেন।

শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) স্থানীয় সময় দুপুরে ন্যাম শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের পর দুই প্রধানমন্ত্রী বাকু কংগ্রেস সেন্টারে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসেন।

বৈঠকে পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়, বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর বিষয়ে আলোচনা করেন দুই প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে বাকু কংগ্রেস সেন্টারে শুরু হয় ১৮তম জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন-ন্যাম শীর্ষ সম্মেলন। এতে অন্য রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সঙ্গে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ন্যামের নতুন চেয়ারম্যান আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন ন্যামের বিদায়ী চেয়ারম্যান ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতে বিগত ন্যাম শীর্ষ সম্মেলন থেকে এখন পর্যন্ত যেসব ন্যাম নেতা মারা গেছেন তাদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

সম্মেলন ঘিরে সকাল ১০টার আগে থেকে বাকু কংগ্রেস সেন্টারে আসতে শুরু করেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সেখানে স্বাগত জানান প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ।

উদ্বোধনের আগে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও গ্রুপ ফটোসেশনে অংশ নেন।

১২০টি উন্নয়নশীল দেশের জোট ন্যাম জাতিসংঘের পর সবচেয়ে বড় ফোরাম হিসেবে পরিচিত। ২৫ ও ২৬ অক্টোবর বাকুর কংগ্রেস সেন্টারে ১৯৬১ সালে প্রতিষ্ঠিত এ জোটের ১৮তম শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সদস্যভুক্ত ৫০টির বেশি দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান ছাড়াও অন্য দেশের প্রতিনিধি, ১৭টি পর্যবেক্ষক দেশ এবং ১০টি আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতিনিধি এ সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও সম্মেলনে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, কিউবার প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ-ক্যানেল, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ, জিবুতির প্রেসিডেন্ট নানা আকুফো-আদ্দো, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি, পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি, ভারতের ভাইস প্রেসিডেন্ট এম. ভেঙ্কাইয়া নাইডু, তুর্কমেনিস্তানের প্রেসিডেন্ট গুরবাঙ্গুলি বেরদিমুহামেদাউ, আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি প্রমুখ অংশ নিয়েছেন।

রাতে বাকু কংগ্রেস সেন্টারে বিভিন্ন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সঙ্গে নৈশভোজে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা।

সিলেট প্রতিদিন/ এস/আর





পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com