বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৬:১৬ অপরাহ্ন


শ্রীমঙ্গলে স্টেপ সাগর আবারো অ্যাকশনে

শ্রীমঙ্গলে স্টেপ সাগর আবারো অ্যাকশনে


শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি : মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গলের বহুল আলোচিত আশিকুর রহামন সাগর ওরফে স্টেপ সাগর ও তার ভাই আকাশ। স্টেপ করা এই কিশোরদের নেশা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা স্কুল কলেজ শিক্ষার্থীদের এই নেশায় বশীভূত করতে গ্যাং তৈরি করে নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে এই দুই ভাই। জানা যায়,গত ৪ মাস পূর্বে নটর ডেম কলেজের একাদশ শ্রেণির মেধাবী ছাত্র ইমানী হোসেন অন্তরকে ছুরিকাঘাত করে স্টেপ সাগর হিসেবে খ্যাতি! লাভ করে। এবং অন্তর স্টেপের ঘটনা শহরে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে।

বৃহস্পতিবারও তার বিরুদ্ধে করা একটি অভিযোগ প্রত্যাহার না করার কারণে আলোচিত এই সাগরের সঙ্গীয় চাচাতো ভাই আকাশ ফের ক্ষতবিক্ষত করেছে আনোয়ার হোসেন মুকিদ (৪০) এক ব্যক্তিকে। এ ঘটনায় আহতের স্ত্রী দিলারা বেগম বাদী হয়ে শ্রীমঙ্গল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। দিলারা বেগম মামলায় অভিযোগ করেন, সম্প্রতি একটি তুচ্ছ ঘটনায় তার ছেলে শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজের প্রথম বষের্র শিক্ষার্থী ফয়সল আহমেদ শুভকে সাগর ও তার সহযোগী চাচাতো ভাই আকাশ মিয়া (২১) মারপিট করে।

এ ঘটনায় সাগর ও আকাশের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়। ওই মামলা তুলে নিতে বেশ কয়েকদিন ধরে দিলারা বেগম ও তার পরিবারের সদস্যদের চাপ ও হুমকি দিয়ে আসছিল ‘সাগর চক্র’।

কিন্তু দিলারা বেগমের পরিবার মামলা তুলে নিতে অস্বীকৃতি জানালে সাগর ও আকাশ কয়েকজন সহযোগী নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই হোটেল চা পানের সময় দিলারা বেগমের স্বামী আনোয়ার হোসেন মুকিতের উপর ছুরি নিয়ে
ঝাঁপিয়ে পড়ে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় মুকিতকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এর আগে ২০১৭ সালে ১১ই নভেম্বর একই স্থানে রেবতী স্টলের সামনে সন্ধ্যায় কলেজ সড়কের বাসিন্দা সৈয়দ মুর্শেদ সালেহীন নাবিল (২৬) রিকশাযোগে বাসায় ফেরার পথে সাগর তার গতিরোধ করে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। নাবিল এখনও পঙ্গুত্ব জীবনযাপন করছেন। এ ঘটনার কিছুদিন পর পৌর কমিশনার আলকাছ মিয়ার ছেলে বদরুজ্জমান নাইমকে কোর্ট সড়কে আটকিয়ে সাগর একই কায়দায় মারধর করে। একপর্যায়ে তার হাতে থাকা দা দিয়ে কোপ দিলে ওই কোপ মাটিতে পড়ে প্রাণে রক্ষা পায় নাইম।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুছ ছালেক জানিয়েছেন এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে আমরা তদন্ত করছি। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সিলেট প্রতিদিন / এফ এ





পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com