সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৪৫ অপরাহ্ন


ঢাকা লিট ফেস্ট বৃহস্পতিবার থেকে

ঢাকা লিট ফেস্ট বৃহস্পতিবার থেকে


বিনোদন ডেস্ক : দেশি-বিদেশি সাহিত্যিকদের মিলনমেলা ‘ঢাকা লিটারারি ফেস্টিভাল’ বাংলা একাডেমি চত্বরে আগামী বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে। এবার নবমবারের মতো হচ্ছে এ আয়োজন। বাংলাকে বিশ্বের মঞ্চে তুলে ধরার প্রত্যয় নিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে এ উৎসব। মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এ কথা জানান ঢাকা লিট ফেস্টের আয়োজকেরা।

আগামী বৃহস্পতিবার শুরু হতে যাওয়া এ সাহিত্য উৎসবে পাঁচটি মহাদেশের ১৮টি দেশ থেকে শতাধিক বিদেশি এবং দুই শতাধিক বাংলাদেশি সাহিত্যিক, লেখক, গবেষক, সাংবাদিক, রাজনীতিক অংশ নিচ্ছেন। দেশি-বিদেশি অতিথিদের সঙ্গে সরাসরি সাহিত্যসহ সমাজের বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনার সুযোগ থাকছে জনসাধারণের জন্য। তিন দিনের এ আয়োজনে আসছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বুকারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ লেখক মনিকা আলী, ভারতীয় রাজনীতিক শশী থারুর, কথাসাহিত্যিক উইলিয়াম ডালরিম্পল প্রমুখ। দুই বাংলার জনপ্রিয় বাংলাভাষী লেখক শংকর আসছেন এবারের উৎসবে। সঙ্গে থাকছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক শাহীন আখতার, সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, আসাদ চৌধুরী, রুবী রহমান, সেলিনা হোসেন প্রমুখ। এ ছাড়াও অংশ নিচ্ছেন ভারতীয় সাংবাদিক প্রেয়াগ আকবর, প্রিয়াঙ্কা দুবে, ফিনল্যান্ডের সাংবাদিক মিন্না লিন্ডগ্রেন, ডিএসসি পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক এইচ এম নাকভি, ব্রাজিলের কথাসাহিত্যিক ইয়ারা রড্রিগেজসহ আরও অনেকে। তিন দিনের উৎসব চলবে ৯ নভেম্বর পর্যন্ত। প্রথম দিন এই উৎসবে দেওয়া হবে বাংলাদেশের জনপ্রিয় সাহিত্য সম্মাননা জেমকন সাহিত্য পুরস্কার।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক সাদাফ সায্‌, টাইটেল স্পনসর বাংলা ট্রিবিউনের সম্পাদক জুলফিকার রাসেল, ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান, প্লাটিনাম স্পনসর সিটি ব্যাংকের এমডি মাসরুর আরেফিন প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনের শেষ পর্যায়ে অংশ নেন ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক কাজী আনিস আহমেদ ও আহসান আকবর।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক সাদাফ সায্‌ বলেন, ‘শুধুই যে লিট ফেস্টের ৯০টির বেশি সেশন অনুষ্ঠিত হবে তা নয়, এখানে রয়েছে বইয়ের সমারোহ, দেশীয় ঐতিহ্যকে তুলে ধরার উন্মুক্ত মঞ্চ। বই প্রকাশ এবং বইয়ের মোড়ক উন্মোচনও অনুষ্ঠিত হবে এই আয়োজনে। লোকশিল্পীদের উপস্থিতিও থাকবে এই আয়জনে, থাকছেন শিল্পী চন্দনা, মাইজভান্ডারি শিল্পীগোষ্ঠী। আমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িকতা, গণতন্ত্র ও সাহিত্য বিশ্বের কাছে তুলে ধরা।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাদাফ বলেন, ঢাকা লিট ফেস্ট ২০২০ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করা হবে। আর এ বছর জাতির জনককে নিয়ে থাকছে অসংখ্য সেশন। ঢাকা ট্রিবিউনের সম্পাদক জাফর সোবহান বলেন, ‘এটিই একটি উৎসব যেখানে বাংলাদেশকে আমরা বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে পারি, বিশ্ব সাহিত্য ও চিন্তাকে বাংলার মানুষের কাছে তুলে ধরতে পারি। ঢাকার প্রাণকেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হওয়া এই আয়োজন ইতিমধ্যে মানুষের হৃদয় কেড়েছে। আশা করি এবারও সাহিত্যামোদীরা হতাশ হবেন না। ঢাকা ট্রিবিউন এই আয়োজনের সঙ্গে থাকতে পেরে ভীষণ গর্বিত।’

বাংলা ট্রিবিউন-এর সম্পাদক জুলফিকার রাসেল বলেন, ‘এটা যেহেতু একটা উৎসব, এই উৎসবে শুধু সাহিত্যিক নয়, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এখানে আসেন এবং তাঁরা আলোচনা করেন। দেশের বাইরে থেকে যে বরেণ্য ব্যক্তিরা আসেন, তাঁদের সঙ্গে আমাদের দেশের যাঁরা আছেন বিভিন্ন জেনারেশনের, তাঁরা আলোচনা করার সুযোগ পান। অনুষ্ঠানে বাংলা যে সেশনগুলো আছে, সেগুলো আমরা খুব ভালোভাবে অনুসরণ করি, যেহেতু আমি বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি। সেখানে দেখা যায় অনেক কিছু জানার এবং শেখার আছে। সেগুলো আমরা আমাদের পাঠকদের কাছে তুলে ধরি। এ রকম একটি ফেস্টিভালের সঙ্গে বাংলা ট্রিবিউন যুক্ত হতে পেরে গর্বিত এবং আনন্দিত। আমরা বরাবরই এই উৎসবের সঙ্গে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করি।’

সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসরুর আরেফিন বলেন, ‘একজন বাংলা ভাষার লেখক হয়ে আমি ব্যক্তিগতভাবে এবং সিটি ব্যাংকের প্রতিনিধি হিসেবে এই আয়োজনের সঙ্গে থাকতে পেরে আমরা গর্বিত।’ এই সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে মানুষকে বইয়ের কাছে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে এই উৎসবের মাধ্যমে। সিটি ব্যাংক সব সময় ঢাকা লিট ফেস্টের সঙ্গে কাজ করতে ইচ্ছুক বলেও জানান তিনি। তিনি সর্বাঙ্গীণ সাফল্য কামনা করেন।

এই উৎসবের দ্বিতীয় দিনে প্রদর্শিত হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর নির্মিত ডকুফিল্ম ‘হাসিনা: অ্যা ডটার্স টেল’। প্রদর্শন শেষে চলচ্চিত্র নির্মাতা পিপলু খান বলবেন এর নির্মাণ অভিজ্ঞতা নিয়ে। এ ছাড়া ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা কৌশিক মুখার্জি আসছেন তাঁর চলচ্চিত্র নিয়ে আলাপ করতে।

দর্শনার্থী ও সাহিত্যপ্রেমী থেকে শুরু করে সব অঙ্গনের মানুষরে জন্য উন্মুক্ত এ আয়োজনে অংশ নিতে কেবল করতে হবে একটি রেজিস্ট্রেশন। যেটি নিশ্চিত করবে অংশগ্রহণকারীর পরিচয়। রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে পাওয়া ই-টিকেটটি ব্যবহৃত হবে আয়োজনে অংশগ্রহণকারীর প্রবেশপত্র হিসেবে। তবে সবার সুবিধার্থে ই-টিকেটটি প্রিন্ট বা ইলেকট্রনিক ডিভাইসে বহন গ্রহণযোগ্য হবে। রেজিস্ট্রেশন করতে ক্লিক করুন এই ঠিকানায়:

তবে বিশেষ এ আয়োজনে অংশ নিতে যাওয়া বিশেষ বক্তাদের সম্পর্কে জানতে ক্লিক করুন নিচে উল্লেখ করা ঠিকানায়, যেখানে তুলে ধরা হয়েছে আয়োজনে অংশগ্রহণকারীদের পরিচয় থেকে শুরু করে সংক্ষিপ্ত আদ্যোপান্ত।

ঢাকা লিট ফেস্ট আয়োজিত হচ্ছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের বিশেষ সহযোগিতায়। এটির টাইটেল স্পনসর ইংরেজি দৈনিক ঢাকা ট্রিবিউন ও অনলাইন নিউজপেপার বাংলা ট্রিবিউন, প্ল্যাটিনাম স্পনসর সিটি ব্যাংক। অনুষ্ঠানের সার্বিক আয়োজনে রয়েছে যাত্রিক। সহ-আয়োজক হিসেবে রয়েছে বাংলা একাডেমি। এ ছাড়া গোল্ড স্পনসর হিসেবে রয়েছে ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। সিলভার স্পনসর হিসেবে রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক।

সিলেট প্রতিদিন/ এস/আর





পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com