শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৮ অপরাহ্ন


ফেঞ্চুগঞ্জে হাজী সজ্জাদ আলী ট্রাস্টের বৃত্তি বিতরণ

ফেঞ্চুগঞ্জে হাজী সজ্জাদ আলী ট্রাস্টের বৃত্তি বিতরণ

  • 11
    Shares

ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি : ফেঞ্চুগঞ্জে হাজী সাজ্জাদ আলী শিক্ষা কল্যাণ ট্রাস্ট আয়োজিত স্কুল ও মাদ্রাসা পর্যায়ে চতুর্থ শ্রেণীর ২০১৮ খ্রিস্টাব্দের মেধাবৃত্তি পরীক্ষার বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (০৩-১১-১৯) সকাল সাড়ে ১১ টায় স্থানীয় কাসিম আলী সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে এ বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ও ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রবীন্দ্র কুমার নাথের সভাপতিত্বে ও শিক্ষক মাওলানা মাহবুবুল আলমের সঞ্চালনায় বৃত্তি বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে
উপস্থিত ছিলেন, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ,এস,এম জাহিদুর রহমান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও ট্রাস্টের সদস্য সচিব সৈয়দ নুরুজ্জামান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহিরুল ইসলাম মুরাদ, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো.শফিক উদ্দিন, কাসিম আলী সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আহাদুজ্জামান, ফরিজা খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.মিছবাউর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান ও শিক্ষক ফয়জুল ইসলাম, মানিক, হাজী সাজ্জাদ আলী শিক্ষা কল্যাণ ট্রাস্টের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো.আক্তারুজ্জামান (খোকন) ও এটিএন বাংলা সিলেট জেলা প্রতিনিধি শাহ্ মুজিবুর রহমান জকন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ফেঞ্চুগঞ্জ মোহাম্মদীয়া কামিল মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা ইয়াকুব।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন, হাজী সাজ্জাদ আলী শিক্ষা কল্যাণ ট্রাস্টের কোষাধ্যক্ষ ও সমন্বয়ক সাংবাদিক মো.দেলওয়ার হোসেন পাপ্পু।

বক্তব্য রাখেন, ট্রাস্টের অন্যতম সদস্য হাজী আব্দুল হাই খসরু, অভিভাবকদের পক্ষে হাজী ইমরান আহমেদ চৌধুরী, লন্ডনের ফেঞ্চুগঞ্জ কল্যাণ সমিতি লুটন স্টেট শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ, বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের পক্ষে শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী ওয়াজিহা আমীন লাবিবা ও মোহাম্মদীয়া কামিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মো. তামীম আল আতহার।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ,এস,এম জাহিদুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে হাজী সাজ্জাদ আলী শিক্ষা কল্যাণ ট্রাস্ট আয়োজিত মেধাবৃত্তি পরীক্ষা একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। স্মারক সংকলনের তথ্যমতে মরহুম হাজী সজ্জাদ আলী প্রাতিষ্ঠানিকভাবে তেমন শিক্ষিত না হয়েও মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আজীবন শিক্ষার জন্য কাজ করে গেছেন।

তিনি বলেন, একটি বাচ্চাকে যদি আমরা প্রকৃত মানুষ করতে চাই তাহলে তাঁর অনুপ্রেরণার প্রয়োজন রয়েছে, আর এই অনুপ্রেরণা বিদ্যালয়ের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নির্ভর হলে চলবেনা, তাঁর মেধা বিকাশে প্রয়োজন কোন ট্রাস্ট বা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে এ রকম মেধা-বৃত্তির আয়োজন করা। এতে করে একজন বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর হাতে তুলে দেওয়া হয় নগদ অর্থ, সনদ বা ক্রেষ্ট। ফলে অনুপ্রাণিত হয়ে এই শিক্ষার্থীরা কেউ ডাক্তার কেউ প্রকৌশলী বা কেউ শিক্ষক হতে তাদের প্রতি খুব আগ্রহ জন্মায়।

উপস্থিত অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, এই বৃত্তি প্রপ্তিটা আপনার সন্তানের জন্য প্রথম ষ্টেপ, তাঁকে আরো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। তবে একটা বাচ্চাকে ডাক্তার প্রকৌশলী বা শিক্ষক বানানোর চেয়ে যেটা সবচেয়ে বেশী জরুরী সেটা হলো তাঁকে একজন ভালো মানুষ বানানোর চেষ্ঠা করতে হবে। মানবিক শিক্ষা, সামাজিক রীতি এগুলো তাঁর ভিতরে প্রবেশের দায়িত্ব রয়েছে প্রথমে বাবা মা’র, তারপর শিক্ষকের। এ বিষয়ে সবাইকে সচেতন থাকার আহবান জানিয়েছেন ইউএনও এ,এস,এম জাহিদুর রহমান।

হাজী সাজ্জাদ আলী শিক্ষা কল্যাণ ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব মোঃ ফরমান আলী’র অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও শ্রদ্ধা জানিয়ে অনুষ্ঠানে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এবারে স্কুল পর্যায়ে ছেলেদের মধ্যে যৌথভাবে উপজেলা ট্যালেন্ট-পুল বৃত্তি পেয়েছে শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী আহকাম ওয়াফি ইশান ও সৈয়দ আফরোজ ফিরোজ একাডেমীর শিক্ষার্থী পৃথ্বিজ সাহা এবং মেয়েদের মধ্যে ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী ওয়াজিহা আমীন লাবিবা। ছেলেদের মধ্যে উপজেলা সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী সস্মিত শেখর দাস ও মেয়েদের মধ্যে একই স্কুলের শিক্ষার্থী রিফাহ তাসফিয়া।

ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়ন ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে ছেলেদের মধ্যে সৈয়দ আফরোজ ফিরোজ একাডেমীর শিক্ষার্থী পিউস সাহা ও মেয়েদের মধ্যে একই স্কুলের শিক্ষার্থী ¯িœগ্ধা সাহা (শ্রুতি)। সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে সৈয়দ আফরোজ ফিরোজ একাডেমীর শিক্ষার্থী মো. তামজিদ কবির সিয়াম ও মেয়েদের মধ্যে একই স্কুলের শিক্ষার্থী সামিয়া ইসলাম।

মাইজগাঁও ইউনিয়ন ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে ছেলেদের মধ্যে হিরো চাইল্ড প্রি-ক্যাডেট একাডেমীর শিক্ষার্থী আলভী আহমদ ও মেয়েদের মধ্যে শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী সাদিয়া ইয়াছমিন। সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে
শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান ও মেয়েদের মধ্যে একই স্কুলের শিক্ষার্থী জেবিনা জেরিন জুহি।

ঘিলাছড়া ইউনিয়ন ট্যালেন্টপুল ক্যাটাগরীতে নির্ধারীত মার্ক না থাকায় নির্বাচিত করা হয়নি। তবে সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে ঘিলাছড়া হলি ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষার্থী হাবিবুর রহমান ও মেয়েদের মধ্যে বাদেদেউলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী প্রমা চক্রবর্তী।

উত্তর কুশিয়ারা ইউনিয়ন ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে ছেলেদের মধ্যে শফিক-রাবেয়া একাডেমীর শিক্ষার্থী শামসুল ইসলাম নাঈম ও মেয়েদের মধ্যে নির্ধারীত মার্ক না থাকায় নির্বাচিত করা হয়নি। তবে সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে ছেলেদের মধ্যে শফিক-রাবেয়া একাডেমীর শিক্ষার্থী শাহদাত হোসেন ও মেয়েদের মধ্যে নির্ধারীত মার্ক না থাকায় নির্বাচিত করা হয়নি।

উত্তর ফেঞ্চুগঞ্জ ইউনিয়ন ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে ছেলেদের মধ্যে মর্ণিংসান চিলড্রেন একাডেমীর শিক্ষার্থী ফাহাদুল ইসলাম (জিসান) ও মেয়েদের মধ্যে একই স্কুলের শিক্ষার্থী মারজানা মীম। সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে মর্ণিংসান চিলড্রেন একাডেমীর শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান রাহি ও মেয়েদের মধ্যে একই স্কুলের শিক্ষার্থী সুমাইয়া আক্তার।

মাদ্রাসা পর্যায়ে উপজেলা ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছে মোহাম্মদীয়া কেজি স্কুলের শিক্ষার্থী মারজান হোসেন জিসান ও মোহাম্মদীয়া কামিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মোঃ তামীম আল আতহার। উপজেলা সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে মোহাম্মদীয়া
কামিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মোঃ মোশারফ হোসেন মাসুম ও হোসাইন মনসুর তানিম।

এছাড়া বিশেষ বৃত্তি পেয়েছে স্কুল পর্যায়ে সৈয়দ আফরোজ ফিরোজ একাডেমীর শিক্ষার্থী ফাইজাহ্ রহমান ও রুবাই করিম, শাহজালাল এনজিএফএফ স্কুলের শিক্ষার্থী আরাফাত হোসেন শাওন, ইউসুফ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কাজী শাহরিয়ার জারিফ ও কাজী তাজমি আক্তার। মাদ্রাসা পর্যায়ে বিশেষ বৃত্তি পেয়েছে ফরিদপুর জামেয়া ইসলামীয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী হামীম ইমরান চৌধুরী আবীর।

পরীক্ষায় উপজেলার স্কুল ও মাদ্রাসার ৪৯ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা এই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে স্কুল পর্যায়ে ছিল ৪২টি ও মাদ্রাসা পর্যয়ে ছিল ৭ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ৩২১ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে স্কুল পর্যায়ে ছিল ২৬৭ জন ও মাদ্রাসা পর্যায়ে ছিল ৫৪ জন। এর মধ্যে অনুপস্থিত ছিল স্কুল পর্যায়ে ১১ জন ও মাদ্রাসা পর্যায়ে ৩ জন।

প্রতিবারের ন্যায় এবারও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের ছবি সম্বলিত “স্মারক সংকলন” ৬ষ্ঠ প্রকাশনী প্রকাশিত হয়। ২০১৯ খ্রিস্টাব্দের বৃত্তি পরীক্ষা আগামী ৬ ডিসেম্বর সকাল ১০ টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত স্থানীয় ফরিজা খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

সিলেট প্রতিদিন/এম/এ


  • 11
    Shares




পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com