মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন


খাম পাঠালেই ‘রেড সিগন্যাল’

খাম পাঠালেই ‘রেড সিগন্যাল’

  • 262
    Shares

প্রতিদিন প্রতিবেদক:: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেছেন, যারা লুটপাট করে, জমি দখল করে, চাঁদাবাজি করে, মানুষ খুন করে, আওয়ামী লীগের সাথে লিয়াজো করে চলে, বিএনপির সাথে আঁতাত রাখে, দেশের বারোটা বাজাচ্ছে তারা কোনদিনই কমিটিতে ঠাঁই পাবে না। যারা দলের পদবী পাওয়ার জন্য লবিং তদবির করেন, খাম পাঠাবেন, কন্ট্রাক্ট করবেন তাদের বিরুদ্ধে ‘রেড সিগন্যাল’। যারা দীর্ঘদিন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করছে কিন্তু পদ-পদবী পাচ্ছেন না তাদেরকে কমিটিতে আনুন। তারা কোনদিনই পদ পাবেন না। তৃণমূলবান্ধব ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের দিয়েই কমিটি গঠন করা হবে।

তিনি আজ শনিবার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ করতে হলে শেখ হাসিনার কথা মানতে হবে, শুনতে হবে। তার নির্দেশ মতো কাজ করতে হবো। শেখ হাসিনা এগিয়ে চলো, আমরা আছি তোমার সাথে- একথা শুধু মখে বললে হবে না। শেখ হাসিনা গেলেন উত্তরে আর আপনারা গেলেন দক্ষিনে। এমন নেতাকর্মী দরকার নেই আওয়ামী লীগে।

মন্ত্রী ইমরানের আহমদের প্রশংসা করে আহমদ হোসেন বলেন, আমি এখানে আসার আগে মন্ত্রী ইমরানকে বললাম, আপনার কোনো পছন্দ আছে? মন্ত্রী বললেন- সবাই আমার পছন্দ। সবাই আমার কর্মী।

বিএনপিকে নিয়ে আহমদ হোসেন বলেন, বিএনপি কি করবে খুঁজে পাচ্ছেনা, দিশেহারা হয়ে গেছে। বিএনপি’র একজনই আছেন বেগম জিয়া। তিনি তো মহা চোর। চুরি করার কারনে কারাগারে আছেন। বেগম জিয়াকে কি মুক্তি আমরা দিবো। আদালত দিবে। আপনারা এই চুরির ব্যাখ্যা দিতে পারেন না। এটা তাদের আইনজীবীর ব্যর্থতা। পারছেন না বেগম জিয়াকে মুক্তি করতে। এটাও কি আওয়ামী লীগের দোষ। বিএনপি শুধু দোষ খুঁজে। এটি দোষ খোঁজার দল।

তিনি বলেন, এখন আবার বিএনপি চাইছে প্যারোলে মুক্তি আনবে। আদালতে আবেদন করুন। আদালত যদি প্যারোলে মুক্তি দেই। তাহলে তো ভালো।
আহমদ হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইনকে শ্রদ্ধা করেন, সংবিধানকে শ্রদ্ধা করেন। আইন আইনের গতিতে চলছে। তিনি নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ^বাসী প্রধানমন্ত্রীকে সাপোর্ট করেছে, কিন্তু দোষ খোঁজার দল বিএনপি প্রধানমন্ত্রীকে মেনে নিতে পারেনি। এটা তাদের ব্যর্থতা।

তিনি বলেন, একাত্তরের স্বাধীনতার পর অনেক দেশ বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিয়েছে। শুধু পাকিস্তান মার্কা কিছু দেশ অস্বীকৃতি জানিয়েছে- এটা যেমন সত্য তেমনি ২০১৮ সালের নির্বাচনও সত্য। পৃথিবীর এমন কোন সরকার প্রধান নাই, রাষ্ট্র প্রধান নাই যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানায় নি। তারা বলছেন- বাংলাদেশে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা অটল। উন্নয়ন, সততা, নিষ্ঠা, দেশপ্রেম সবকিছু দিয়ে তিনি বিশে^র কাছে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। কিন্তু শুধুমাত্র বিএনপি স্বীকৃতি দেয়নি। তবে হাস্যকর লাগে- তারাও আবার জাতীয় সংসদে প্রতিনিধি পাঠিয়েছে। যারা নির্বাচনকে অস্বীকৃতি জানায় তারা জাতীয় সংসদকে কিভাবে স্বীকৃতি দেয়। এটা তাদের ব্যর্থতা, অজ্ঞতা।

তিনি বলেন, এমন কি সরকার প্রধান আছেন, যে তার দল থেকেই দুর্নীতিমুক্ত অভিযান শুরু করেছেন। বেগম জিয়াকে বিএনপিকে দুর্নীতির দল বানিয়েছিলেন। আর শেখ হাসিনা নিজ দলের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে প্রমান করেছেন- সবকিছুর উর্ধ্বে দেশপ্রেম। তিনি দেশের উন্নয়ন চান, দেশের মানুষের শান্তি চান। দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে- সে আন্দোলন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চালিয়ে যাবেন। দুর্নীতিবাজ যেই হোক তার কোন রক্ষা নেই।


  • 262
    Shares




পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com