মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৪ অপরাহ্ন


ফেঞ্চুগঞ্জে ১ পিস পেঁয়াজের দাম ৬১ টাকা

ফেঞ্চুগঞ্জে ১ পিস পেঁয়াজের দাম ৬১ টাকা

  • 820
    Shares

রুমেল আলী, ফেঞ্চুগঞ্জ : এই যে শুনছেন, পেঁয়াজের কেজি কত? আজ শুক্রবার দুপুর আনুমানিক ২টায় ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পূর্ব বাজারে একটি মুদি দোকানের সামনে রিকশা থামিয়ে এক ভদ্রমহিলা দোকানির উদ্দেশ্যে এ প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন। জবাবে দোকানি বললেন, দামাদামি করবেন না আপা, একদাম ২২০ টাকা।

ভদ্রমহিলার পাশে বসা স্কুলে পড়ুয়া মেয়েকে রিকশার হুড শক্ত করে ধরে বসতে বলে রিকশার সিট থেকে নেমে খানিকটা নিচুস্বরে দোকানিকে ৫০০ গ্রাম পেঁয়াজ মেপে দিতে বললেন। ভদ্রমহিলার বেশভূষা বেশ পরিপাটি। ৫০০ গ্রামে কয়েকটি পেঁয়াজ। সাইজে একটি খুব বড় ও ৫টি ছোট এমন ছয়টি পেঁয়াজ উঠল। তিনি হেসে বললেন, ১১০ টাকায় পেলাম ৬টি, তাহলে ১টি পেয়াজের দাম পড়লো ১৮ টাকা। ৬টি পেঁয়াজ থেকে বড় একটি পেঁয়াজ ডিজিটাল ওজন মাপার যন্ত্রের মধ্যে তুলে দেখা যায়, পেঁয়াজটির দাম পড়েছে ৬১ টাকা।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তার স্ত্রী ওই ভদ্রমহিলা বলেন, আগে পেঁয়াজ কিনতাম কেজি দরে আর এখন দাম বৃদ্ধির কারণে গ্রাম করে কিনতে বাধ্য হচ্ছি। রান্নাবান্নায় পেঁয়াজ ব্যবহারের অভ্যাস না থাকলে পেঁয়াজ খাওয়া ছেড়েই দিতাম বলে উষ্মা প্রকাশ করলেন ওই ভদ্রমহিলা।

সারা দেশের সঙ্গে ফেঞ্চুগঞ্জ বাজারে পেঁয়াজের দামের ঝাঁঝ বৃদ্ধিতে বিপাকে পড়েছেন স্থানীয়রা। পেঁয়াজের দাম বাড়তে বাড়তে আজ খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ২২০-২২৫ টাকায় ঠেকেছে। তবে বাজারভেদে কোথাও কোথাও ২০০-২১০ টাকা দরেও বিক্রি হতে দেখা গেছে। অব্যাহত দাম বৃদ্ধির কারণে পেঁয়াজ খাওয়া কমিয়ে দিয়েছে বহু পরিবার। মাত্র মাস দুয়েক আগেও বহু পরিবারের কর্তা যারা এক কেজির কমে পেঁয়াজ কিনতেন না তারা এখন পরিমাণ কমিয়ে ১০০ গ্রাম থেকে ২৫০ গ্রাম করে পেঁয়াজ কিনছেন।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, সরকারের মন্ত্রী আমলারা পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রনে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হচ্ছেন। গত মে মাসে বাজারে পেঁয়াজ প্রতি কেজি ক্রয় মূল্য ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা ও বিক্রয় মূল্য ২২ থেকে ২৮ টাকা। আর আমদানিকৃত পেঁয়াজ প্রতি কেজি ক্রয়মূল্য ১৮ থেকে ২০ টাকা ও খুচরা মূল্য ১৯ থেকে ২২ টাকা ছিল। মাত্র চার, পাঁচ মাসের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম ছয়গুণ বেড়েছে।

দোকানিরা বলছেন, তারা বেশি দামে কিনে আনেন তাই বেশি দামে বিক্রি করতে বাধ্য হন। ভারত থেকে নতুন পেঁয়াজ আমদানি না করা পর্য়ন্ত পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে না বলে তারা মনে করেন। প্রতিবেশী দেশ ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় পেয়াজের বাজারে সরবরাহ সংকট দেখা দেয়। ফলে মাস দুয়েক পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণহীন।

সিলেট প্রতিদিন/জামিল


  • 820
    Shares




পুরানো সংবাদ

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  


© All rights reserved © 2017 sylhetprotidin.com