শুক্রবার, ০৭ অগাস্ট ২০২০, ০৩:০৫ অপরাহ্ন


ঘনিয়ে আসছে ঈদ: সিলেটে ক্রেতাশুন্য পশুর হাট

ঘনিয়ে আসছে ঈদ: সিলেটে ক্রেতাশুন্য পশুর হাট

মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম:
যত দিন যাচ্ছে ততোই ঘনিয়ে আসছে পবিত্র ঈদুল আযহা। মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহা বা কোরবানির ঈদের প্রধান অনুসঙ্গ হলো পশু কোরবানী দেয়া। মুসলমানরা এই দিনে উৎসবের সাথে পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন।

বিভাগীয় নগরী সিলেটে বেশ কয়েকটি স্থানে কোরবানির পশুর হাট বসলেও ক্রেতাদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে নগরীর প্রধান পশুর হাট কাজির বাজারের দিকে। এ বাজারে প্রতি বছর প্রচুর পশু বেচাকেনা হয়। বড় বাজার হওয়াতে ক্রেতাদেরও এই বাজারের প্রতি আকর্ষণ থাকে বিশেষ ভাবে।

তবে এবার করোনা মহামারির কারণে কোরবানির পশুর হাটে বেচাকেনা কেমন হবে তা নিয়ে ক্রেতা বিক্রেতারা রয়েছেন বিরাট শংকায়।

সরেজমিনে, শনিবার (১১ জুলাই) নগরীর প্রধান পশুর হাট কাজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে প্রচুর বিক্রেতা থাকলেও নেই ক্রেতাদের আনাগুনা। যদিও অন্যান্য বারের তুলনায় এবার বাজারে গরুর সংখ্যাও কম। বিক্রেতারা জানিয়েছেন, করোনার ভয়ে বাজারে গরু কম আসছে। বেপারিরা গরু নিয়ে আসতে ভয় পাচ্ছেন।

কাজির বাজারে এবার এখনো সিলেটের বাহিরে থেকে তেমন কোন বেপারী গরু নিয়ে আসেন নি। যারা এসেছেন তারা সবাই সিলেটের আশপাশের বাজারের ব্যবসায়ী। কথা হয় মাসুকগঞ্জ বাজার থেকে আসা একজন বিক্রেতার সাথে, তিনি জানান বাজারের ক্রেতা না থাকায় গরুর দাম নিম্নমুখী। গত দুদিন থেকে তিনি একটি গরুও বিক্রি করতে পারেন নি।

কথা হয় কাজির বাজারে গরু কিনতে আসা দক্ষিণ সুরমার জনি আহমদের সাথে, তিনি জানান বাজার এখনো জমে উঠেনি। গরুর সংখ্যাও কম। তবে তিনি আশা করেন কয়েকদিনের মধ্যেই বাজার জমে উঠবে।

বাজারের নিয়মিত একজন গরু ব্যবসায়ী ফারুক মিয়া জানান, করোনার প্রভাবে বাজার জমতে দেরি হচ্ছে। সপ্তাহখানেকের মধ্যেই এই খরা কেটে যাবে।

সিলেট প্রতিদিন/এমএনআই-০১




পুরানো সংবাদ সংগ্রহ



© All rights reserved © 2019 Sylhetprotidin24.Com